রিমান্ডের নামে যা হয়েছে এবং অবশেষে মুক্তি পেল পরীমনি

 রিমান্ডের নামে যা হয়েছে তা খুব দুঃখজনক এবং অবশেষে মুক্তি পেল পরীমনি। অবশেষে মুক্তি পেলেন বাবা-মা হারা এতিম চিত্রনায়িকা পরীমনি। আজ বুধবার সকাল ৯.৩০ মিনিট এর দিকে গাজীপুরের কাশিমপুর, মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে চিত্রনায়িকা পরীমনিকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। পরীমনি ওই কারাগারে ২৭ দিন ছিলেন।
 
 
obosese-mukti-pelo-porimoni

{tocify} $title={Table of Contents}
 
"পরীমনির মুক্তি পাবেন" এই খবর পেয়ে ভোর থেকে কারা ফটকে উৎসুক জনতা তাঁকে একনজর দেখার জন্য ভিড় করেন।


 

অবশেষে মুক্তি পেল পরীমনি


 কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপার হালিমা খাতুন বলেন, গতকাল মঙ্গলবার পরীমনির জামিন জামিন হয়েছে। কিন্তু সঠিক সময়ে জামিনের কাগজ কারাগারে না পৌঁছানোয় তাঁকে মুক্তি দেওয়া সম্ভব হয়নি। আজ সকালে তাঁর জামিনের কাগজ যাচাই-বাছাই শেষে তাঁকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

 

মাদক মামলায় জামিন পাওয়া চিত্রনায়িকা পরীমনির মুক্তির অপেক্ষায় তার নানা ও স্বজনেরা আজ বুধবার সকাল থেকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারের সামনে অবস্থান করছিলেন। তখন পরীমনির আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত বলেন, পরীমনিকে কারাগার থেকে নিতে তাঁর খালু জসীমউদ্দিনসহ সাত-আটজন স্বজন এসেছেন তাদের সাথে তার নানা ও ছিল।

 

সি ইউ নট ফর মাইন্ড- আমাকে নিয়ে আর খেলবেন না প্লিজ জেনে নিন

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েস পরীমনির ২৬ দিন কারাভোগের পর জামিনের আদেশ দেন।

 

 পরীমনি রিমান্ড


 গত ৪ আগস্ট বিকেলে বনানীর ১২ নম্বর রোডে, পরীমনির বাসায় অভিযান চালায় র‍্যাব সদস্ এবং সেখানে বিপুল পরিমাণ বিদেশী মদ ও ফেনসিডিল পায়। যার কারণে মাদকের মামলায় পরীমনির ৫ আগস্ট চার দিনের ও ১০ আগস্ট দুই দিনের এবং ১৯ আগস্ট এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। রিমান্ড শেষে ২১ আগস্ট তাঁকে কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়। রিমান্ড শেষে ২২ আগস্ট পরীমনির পক্ষে তাঁর আইনজীবীরা ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করেন। উক্ত আদালতে ১৩ সেপ্টেম্বর জামিন শুনানির দিন ধার্য করেন।



 তবে জামিন শুনানির জন্য ২১ দিন পর দিন ধার্য করায় ওই আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে কারাগারে বন্দী অবস্থায় হাইকোর্টে রিট করেন পরীমনি। অপেক্ষা না করে তার জামিন আবেদনের শুনানি ২১ দিন পর ১৩ সেপ্টেম্বর নির্ধারণ করে মহানগর দায়রা জজ আদালতের দেওয়া আদেশ কেন বাতিল ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল দেন হাইকোর্ট।

 

ধর্ষণচেষ্টা

চলতি বছরেই জুন মাসে নাসির উদ্দিন নামে এক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগ করে ব্যাপকভাবে আলোচনায় এসেছিলেন পরীমনি।



প্রথমে পরীমনি তার ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজে 'ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টার' অভিযোগ তুলে বেশ সাড়া ফেলে ছিলেন। শত্রুদের দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার পর প্রতিকার চেয়ে পরীমনি বনানী থানায় গিয়ে কোন সাড়া পাননি।



অতঃপর সোশ্যাল মিডিয়ায় বিচার চেয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহায্য কামনা করেন।


উক্ত ঘটনার জের ধরে মামলা হয় এবং ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদকে আটক করে পুলিশ, সেই ব্যবসায়ী নাসিরবর্তমানে জামিনে মুক্ত আছেন।



গত প্রায় এক দশক ধরে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন পিতা মাতা হারা এই অভিনেত্রী পরী মনি।



তার সৌন্দর্যের কারণে ২০২০ সালে ফোর্বস ম্যাগাজিনের করা এশিয়ার ১০০ ডিজিটাল তারকার তালিকায় ঠাঁই করে নিয়েছিলেন তিনি।

Post a Comment

Previous Post Next Post

Facebook

Recent